ব্রেকিং:
বিয়ে বাড়িতে আত্মঘাতী বোমা বিস্ফোরণ! চামড়া সংরক্ষণ যথাযথভাবে করা হয়েছে: শিল্প সচিববঙ্গবন্ধু হত্যাকাণ্ড তদন্তে কমিশন গঠনের দাবি তথ্যমন্ত্রীর ‘এখনো ষড়যন্ত্র চলছে, বাতাসে চক্রান্তের গন্ধ’ ‘চিকিৎসকদের উচ্চশিক্ষার জন্য বিদেশে পাঠানো হবে’
  • বৃহস্পতিবার   ০৯ এপ্রিল ২০২০ ||

  • চৈত্র ২৬ ১৪২৬

  • || ১৫ শা'বান ১৪৪১

আজকের ময়মনসিংহ
৩৯২

২৪ ঘণ্টার মধ্যেই কিডনির পাথর গলবে পাঁচ উপায়ে

আজকের ময়মনসিংহ

প্রকাশিত: ২২ জানুয়ারি ২০২০  

বিনা অস্ত্রোপচারে শুধু প্রাকৃতিক উপায়েই ২৪ ঘণ্টার মধ্যে কিডনির পাথর গলবে! অবাক হচ্ছেন নিশ্চয়ই! জানেন কি? প্রাকৃতিক কিছু উপায়ে কিডনির পাথর দ্রুত গলানো সম্ভব।

প্রথমেই জেনে নিন, কিডনির পাথর কীভাবে সৃষ্টি হয়? কিডনিতে সৃষ্ট পাথরগুলো ক্যালশিয়াম, অক্সেলেট এবং ইউরিক এসিডের সমন্বয়ে হয়ে থাকে। কিডনিতে পাথর হওয়ার ফলে এর প্রভাব পড়ে প্রস্রাবে। অল্প পরিমাণে প্রস্রাব ও এসময় জ্বালা-পোড়া ও ব্যথা অনুভব হয়ে থাকে।

কম পানি খাওয়ার ফলে এ সমস্যা বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই হয়ে থাকে। এছাড়াও বারবার কিডনিতে ইনফেকশন হওয়া এবং এর জন্য যথাযথ চিকিত্‍সার ব্যবস্থা না করায় কিডনিতে পাথর দেখা দেয়। এবার তবে জেনে নিন যে পাঁচ উপায়ে প্রাকৃতিকভাবেই কিডনির পাথর গলাবেন-

১. লেবুর রস ও অলিভ অয়েল একটি কার্যকরী উপায়। এজন্য প্রয়োজন এক টেবিল চামচ এক্সট্রা ভার্জিন অলিভ অয়েল, ১ টেবিল চামচ লেবুর রস ও দেড় মগ পানি। পানিতে এই উপাদান দুটি ভালোভাবে মিশিয়ে দিনে অন্তত তিনবার পান করুন। তবে টানা তিন দিন এই পানীয়টি পান করুন। কিডনির পাথর বেরিয়ে যাবে ফ্লাশের মাধ্যমে।

২. অ্যাপেল সিডার ভিনেগার আরো একটি কার্যকরী প্রাকৃতিক উপাদান। এটি শুধু কিডনির পাথর নয় বরং শারীরিক বিভিন্ন সমস্যা মোকাবিলা করে। এজন্য ২ টেবিল চামচ অ্যাপেল সিডার ভিনেগার পানিতে মিশিয়ে তিন বেলা খাওয়ার পূর্বে পান করুন। তবে কখনো পানি ব্যতীত এই উপাদানটি গ্রহণ করবেন না।

 

কিডনির পাথর

কিডনির পাথর

৩. মুলার রস কিডনির পাথর গলাতে সাহায্য করে। এটি কিডনি পরিষ্কার করে থাকে। এতে রয়েছে ফাইবার, ফলিক এসিড, পটাশিয়াম, ক্যালসিয়াম এবং ভোলেটাইলস অয়েল। মুলার রস হজমশক্তি বাড়ায় এছাড়াও মূত্রনালীর সংক্রমণ থেকে বাঁচায়। এজন্য একটি মুলা ধুয়ে নিয়ে কেটে ব্লেন্ড করে রস ছেঁকে নিন। সকালে খালি পেটে এই রস পান করুন। ভালো ফল পেতে মুলার সঙ্গে গাজর ও শসার রসও মিশিয়ে নিতে পারেন।

৪. বাসিল পাতার রস ইউরিক এসিডের মাত্রা কমাতে সাহায্য করে। এছাড়াও বাসিলে থাকা অ্যাসিটিক এসিডের কারণে কিডনির পাথর আস্তে আস্তে নরম হতে থাকে। অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট ও অ্যান্টি-ইনফ্লেমেটরি উপাদানের কারণে এটি কিডনির স্বাস্থ্যের জন্য খুবই ভালো। এজন্য চার থেকে পাঁচটি বাসিল পাতা সাত থেকে আট মিনিট পানিতে ফুটিয়ে নিন। এবার ছেঁকে পানিতে সামান্য মধু মিশিয়ে দিনে বিভিন্ন সময় চায়ের মতো পান করুন।

৫. ডাবের পানিতে প্রচুর পটাশিয়াম রয়েছে। কিডনির স্বাস্থ্য ভালো রাখতে ডাবের পানির বিকল্প নেই। দিনে দুই ঘণ্টা পর পর এক মগ করে হলেও পানির পাশাপাশি ডাবের পানি পান করুন। এতে ঘন ঘন প্রস্রাবের বেগ পাবে। সঙ্গে কিডনির পাথর গলতেও সাহায্য করবে। এর ফলে প্রস্রাবের জ্বালা-পোড়া ভাবও কমবে।

কিডনির পাথর গলানোর জন্য যেসব খাবার পরিহার করবেন-

১. যেসব খাবারে সোডিয়াম রয়েছে

২. প্রাণীজ প্রোটিন রয়েছে যেসব খাবারে

৩. ভাজা পোড়া খাবার পরিহার করতে হবে। 

৪. সেইসঙ্গে বোতলজাত পানীয় পান করা থেকে বিরত থাকুন।

সূত্র: রাইটহোমরেমেডিস

আজকের ময়মনসিংহ
আজকের ময়মনসিংহ
স্বাস্থ্য বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর