ব্রেকিং:
বিয়ে বাড়িতে আত্মঘাতী বোমা বিস্ফোরণ! চামড়া সংরক্ষণ যথাযথভাবে করা হয়েছে: শিল্প সচিববঙ্গবন্ধু হত্যাকাণ্ড তদন্তে কমিশন গঠনের দাবি তথ্যমন্ত্রীর ‘এখনো ষড়যন্ত্র চলছে, বাতাসে চক্রান্তের গন্ধ’ ‘চিকিৎসকদের উচ্চশিক্ষার জন্য বিদেশে পাঠানো হবে’
  • রোববার   ৩১ মে ২০২০ ||

  • জ্যৈষ্ঠ ১৬ ১৪২৭

  • || ০৮ শাওয়াল ১৪৪১

আজকের ময়মনসিংহ
১৪১

ময়মনসিংহে জুস খেয়ে চিরঘুমে চলে গেলেন সুস্মিতা

আজকের ময়মনসিংহ

প্রকাশিত: ৪ অক্টোবর ২০১৯  

ময়মনসিংহে দুই শিশু হকারের অনুনয়-বিনয়ে অনিচ্ছা সত্ত্বেও একটি জুসের বোতল কেনেন সুস্মিতা। আর এই জুস খেয়েই চিরঘুমে চলে গেলেন তিনি।  

হাসপাতালে পাঁচ দিন লড়াইয়ের পর বুধবার সন্ধ্যায় অনার্স ও মাস্টার্সে প্রথম শ্রেণিতে উত্তীর্ণ হওয়া এই মেধাবী ছাত্রী মারা যান।

ময়মনসিংহের গৌরীপুর উপজেলার ডৌহাখলা ইউপিতে সুস্মিতার বাড়ি। গণিত থেকে অনার্স ও মাস্টার্স পাশ করেন সুস্মিতা।

পরিবার সূত্রে জানা যায়, এক সপ্তাহ আগে বাড়ি থেকে ঢাকা যাওয়ার পথে ময়মনসিংহ ব্রিজের মোড় থেকে এক বোতল পানি কেনেন সুস্মিতা। ওই সময় দুই শিশু হকার জুস বিক্রির জন্য অনুনয়-বিনয় করলে তিনি একটা জুসের বোতল কিনেন। পরে সেটি না খেয়ে ব্যাগেই রেখে দেন।

এরপর ঢাকা থেকে রাতে বাড়ি ফিরে আসেন সুস্মিতা। রাতে ভাত না খেয়ে ওই কেনা জুস খেয়ে ঘুমিয়ে পড়েন। পরদিন সকাল ১০টা হলেও ঘুম থেকে না জাগায় তার মা ডাকাডাকি শুরু করেন। পরে বাড়ির লোকজন ও প্রতিবেশীরা ছুটি গিয়ে তাকে ঘুম থেকে উঠানোর চেষ্টা করেও সম্ভব হয়নি।

পরে চিকিৎসক এনে বাড়িতে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়ার পর ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হয়। সেখানে তিন দিন চিকিৎসার পরও অবস্থা ভালো না হওয়ায় ঢাকায় নেয়ার পরামর্শ দেন চিকিৎসক।

বুধবার বিকেলে ঢাকা নেয়ার পথে শারীরিক অবস্থার আরো অবনতি হতে থাকে। এই পরিস্থিতিতে তাকে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ফিরিয়ে নেয়া হয়। কিন্তু তার আগেই মারা যান সুস্মিতা। 

গৌরীপুর থানার ওসি কামরুল ইসলাম বলেন, ঘটনাটি কিছুক্ষণ আগেই জেনেছি। এ বিষয়ে থানায় এখনো কেউ অভিযোগ করেনি।

ময়মনসিংহ বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর