ব্রেকিং:
বিয়ে বাড়িতে আত্মঘাতী বোমা বিস্ফোরণ! চামড়া সংরক্ষণ যথাযথভাবে করা হয়েছে: শিল্প সচিববঙ্গবন্ধু হত্যাকাণ্ড তদন্তে কমিশন গঠনের দাবি তথ্যমন্ত্রীর ‘এখনো ষড়যন্ত্র চলছে, বাতাসে চক্রান্তের গন্ধ’ ‘চিকিৎসকদের উচ্চশিক্ষার জন্য বিদেশে পাঠানো হবে’
  • শনিবার   ৩০ মে ২০২০ ||

  • জ্যৈষ্ঠ ১৬ ১৪২৭

  • || ০৭ শাওয়াল ১৪৪১

আজকের ময়মনসিংহ
৪১৯

‘বাংলাদেশিরাই বাংলাকে বেশি ভালোবাসে’, পশ্চিমবঙ্গে আক্ষেপ

আজকের ময়মনসিংহ

প্রকাশিত: ১১ ফেব্রুয়ারি ২০১৯  

বাংলা ভাষা পশ্চিমবঙ্গে যথাযথ সম্মান পাচ্ছে না বলে অভিযোগ করেছেন আধুনিক বাংলা সাহিত্যের অন্যতম নক্ষত্র শীর্ষেন্দু মুখোপাধ্যায়। কলকাতা সাহিত্য উৎসবে দুই দেশ এক বাংলা শীর্ষক আলোচনায় অংশ নিয়ে এ কথা বলেন ওপার বাংলার এই সাহিত্যিক। খবর এনডিটিভির।

তিনি বলেন, ‘আমার মনে হয় বাংলাভাষার প্রতি বাংলাদেশের নাগরিকদের আবেগ-ভালোবাসা অনেক বেশি। কিন্তু সেই তুলনায় এই বাংলার বাঙালিরা যা করে তা কিছুই নয়। নিজেকে বাঙালি ভাবা বা বলার মধ্যে কোনও অন্যায় নেই।’

বাংলা বই পড়ার ব্যাপারেও বাংলাদেশের নাগরিকরা অনেক এগিয়ে আছে বলে জানান শীর্ষেন্দু। তিনি বলেন ‘এই বাংলায় আমার কোনও বই যদি ৫০ কপি বিক্রি হয় তাহলে ওই বাংলায় সেই পরিমাণ হবে কমকরে পাঁচশো।

এরপর তিনি এই দুই বাংলার মধ্যে যে মিল এবং আত্মিক যোগাযোগ রয়েছে মন্তব্য করে তিনি বলেন, দেশ ভাগ হয়েছে রাজনৈতিক সমীকরণের জন্য।

অনুষ্ঠানে সম্প্রতি আসামে উগ্রহিন্দুদের হাতে হেনস্থার শিকার হওয়া বাঙালি কবি শ্রীজাতও বক্তব্য রাখেন। তিনি বলেন, ‘এ রাজ্যে আমার বই নিয়ে আলোচনা শুরুর আগেই ওপার বাংলার বন্ধুরা আগ্রহ দেখায়। সোশ্যাল মিডিয়ায় লেখা পোস্ট করলে আরও তাড়াতাড়ি উত্তর পেয়ে যাই আমি।’

পশ্চিমবঙ্গে বাংলা ভাষার সামগ্রিক অবস্থা বোঝাতে গিয়ে একটি উদাহরণ দেন তিনি। কলকাতার কোনও ভবনে ঢুকতে গেলে নির্দিষ্ট খাতায় নাম লিখতে হয়। সেখানে তাঁকে বাংলায় নাম লিখতে দেখলে নিরাপত্তা কর্মীরা অবাক হয়ে যান। কিন্তু বাংলাদেশে এমনটা মোটেই হয় না।

শ্রীজাত বলেন, আমি এমন একটা দিনের জন্য অপেক্ষা করে আছি যেদিন নিজের মাতৃভাষায় কথা বলতে কারও সঙ্কোচ হবে না।

আন্তর্জাতিক বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর