ব্রেকিং:
বিয়ে বাড়িতে আত্মঘাতী বোমা বিস্ফোরণ! চামড়া সংরক্ষণ যথাযথভাবে করা হয়েছে: শিল্প সচিববঙ্গবন্ধু হত্যাকাণ্ড তদন্তে কমিশন গঠনের দাবি তথ্যমন্ত্রীর ‘এখনো ষড়যন্ত্র চলছে, বাতাসে চক্রান্তের গন্ধ’ ‘চিকিৎসকদের উচ্চশিক্ষার জন্য বিদেশে পাঠানো হবে’
  • সোমবার   ১৯ অক্টোবর ২০২০ ||

  • কার্তিক ৪ ১৪২৭

  • || ০২ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

আজকের ময়মনসিংহ

ফুলবাড়িয়া পল্লী বিদ্যুত অফিসে দুদকের অভিযান

আজকের ময়মনসিংহ

প্রকাশিত: ৩০ জানুয়ারি ২০২০  

ফুলবাড়িয়া পল্লী বিদ্যুত অফিসে সার্বক্ষণিক দালালদের উৎপাত। কোনো ফাইল নড়ে না দালাল ছাড়া। অফিসকে ঘিরে দালালরা চেম্বার বানিয়ে বসেছে। দীর্ঘ কয়েক বছর ধরে দালালদের রাম রাজত্ব পল্লী বিদ্যুৎ অফিসে। নতুন বিদ্যুৎ সংযোগ নিতে এসে দালালদের পাল্লায় পরে হয়রানির শিকার হয় প্রায় সব গ্রাহক। দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) হটলাইন ১০৬ অভিযোগ করেন এক বিদ্যুৎ গ্রাহক।

খবর পেয়ে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) ময়মনসিংহ সমন্বিত জেলা কার্যালয়ের সহ উপপরিচালক মো. এনামুল হকের নেতৃত্বে ময়মনসিংহ পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-১ ফুলবাড়িয়া জোনাল অফিসে ম্যাজিস্ট্রেট নিয়ে অভিযান চালায়। এ সময় পল্লী বিদ্যুতের চিহ্নিত দালল শফিউল আলমকে (৩৯) গ্রেপ্তার করেন। তার কাছ থেকে বিদ্যুৎ গ্রাহকদের অর্থের বিনিময়ে পল্লী বিদ্যুতের মিটারের টাকা জমা দেয়ার একাধিক রশিদ জব্দ করা হয়। দুদক দেখে মহুর্তের মধ্যে অন্য দালালরা দৌড়ে পালিয়ে যায়।

ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও সহকারী কমিশনার ভূমি কামরুন্নাহার শেফা দালাল শফিউল আলমকে টাউট আইন ১৮৭৯ (৬) ধারায় ৭ দিনের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দিয়ে কারাগারে প্রেরণ করেন। উপেজলার জোরবাড়িয়া গ্রামের আ. ওয়াহেদ আলীর পুত্র দালাল শফিউল আলম।

সহ উপ পরিচালক মো. এনামুল হক বলেন, পল্লীবিদুৎ অফিসে দালালদের হয়রানির শিকার এক গ্রাহক দুদকের হটলাইনে ফোন দিয়ে অভিযোগ করার প্রেক্ষিতে অভিযান চালিয়ে এক দালালকে আটক করা হয়। এ সময় তার কাছ থেকে বেশ কিছু বিদ্যুতের কাগজপত্র জব্দ করা হয়েছে।

ডেপুটি জেনারেল ম্যানেজার অনিতা বর্ধন বলেন, পল্লী বিদ্যুৎ অফিসকে ঘিরে কিছু দালাল রয়েছে, যারা গ্রহকদের হয়রানি করেন। তবে অফিসের কারও সাথে দালালদের যোগাযোগ নেই।