ব্রেকিং:
বিয়ে বাড়িতে আত্মঘাতী বোমা বিস্ফোরণ! চামড়া সংরক্ষণ যথাযথভাবে করা হয়েছে: শিল্প সচিববঙ্গবন্ধু হত্যাকাণ্ড তদন্তে কমিশন গঠনের দাবি তথ্যমন্ত্রীর ‘এখনো ষড়যন্ত্র চলছে, বাতাসে চক্রান্তের গন্ধ’ ‘চিকিৎসকদের উচ্চশিক্ষার জন্য বিদেশে পাঠানো হবে’
  • সোমবার   ৩০ মার্চ ২০২০ ||

  • চৈত্র ১৬ ১৪২৬

  • || ০৫ শা'বান ১৪৪১

আজকের ময়মনসিংহ
১২০

ফুলপুরে ঝুঁকিতে ৩৬ প্রাথমিক বিদ্যালয়

আজকের ময়মনসিংহ

প্রকাশিত: ১৯ জানুয়ারি ২০২০  

ময়মনসিংহের ফুলপুর উপজেলায় ৩৬টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভবন ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে উঠেছে। ভয়ঙ্কর বিপদ মাথায় নিয়ে শ্রেণিকক্ষে পাঠ নিতে হচ্ছে শিক্ষার্থীদের। ফুলপুর উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তার কার্যালয়ে ঝুঁকিপূর্ণ বিদ্যালয়ের তালিকা পৌঁছে দেওয়ার পরও দ্রুত ব্যবস্থা না নেওয়ায় এসব বিদ্যালয়ে পাঠদানে শিক্ষক ও  শিক্ষার্থীদের জন্য এখন হুমকিস্বরূপ।

বিশেষজ্ঞদের অভিমত, ঝুঁকিপূর্ণ বিদ্যালয় ভবনগুলো শিগগির মেরামত না করলে শিক্ষার্থীদের জন্য মারাত্মক বিপদ হতে পারে।

ফুলপুর উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তার কার্যালয় সূত্রে জানা যায়, ফুলপুরে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সংখ্যা মোট ১৩৭টি। সরকারি  প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সংখ্যা ১১৯টি এবং বেসরকারি রেজিস্ট্রি প্রাথমিক  বিদ্যালয় রয়েছে ১৮টি। এর মধ্যে ৩৬টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভবন ঝুঁকিপূর্ণ হওয়ায় তা পরিত্যক্ত অবস্থায় রয়েছে।

এসব বিদ্যালয়ে শত শত শিক্ষার্থী। সরেজমিনে কয়েকটি বিদ্যালয়ে দেখা যায়, ফুলপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়,  জগন্নাথপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, পূর্ববাখাই সরকারি  প্রাথমিক বিদ্যালয়, সুতারকান্দী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভবন সম্পূর্ণ পরিত্যক্ত। নিশুনিয়া কান্দা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, বাঘেধরা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়,ঘোমগাঁও সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ,খালসাইদকোনা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, তিলাটিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়,খড়িয়াপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, মোকামিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ,হাতিবান্ধা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়,পূর্বমেহেদীপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়,পূর্বদনারভিটা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, গোয়াডেঙ্গা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভবন জরাজীর্ণ অবস্থায় আছে কয়েক বছর ধরে। তাছাড়া রামসোনা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দুটি ভবন টিনের চালা দিয়ে বৃষ্টির পানি পড়ে। বড়ইকান্দী সরকারি  প্রাথমিক বিদ্যালয়ের অবস্থাও শোচনীয়। এসব ভবনের জন্য মারাত্মক ঝুঁকিতে রয়েছে কোমলমতী শিশুরা।

সংশ্লিষ্টদের মতে, বর্তমানে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় কর্তৃক প্রতিটি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভবন সুন্দর দৃশ্যমান। যা দেখে শিশুরা নতুন ভবনের বিশেষ স্কুলে বিশেষ শিক্ষার সুযোগ পাচ্ছে। এতে সুন্দর পরিবেশে শিক্ষার মাধ্যমে স্বাভাবিক ও নিরাপদে শিশু শিক্ষাপাঠে অভ্যস্ত হতে পারবে। ঝুঁকিপূর্ণ  স্কুল ভবনগুলোতে  অনেক শিশুদের মধ্যে মানসিক চাপ ও ভয়- ভীতি কাজ করে। যা শিশুদের জন্য প্রাথমিক শিক্ষার ক্ষেত্রে ভালো লক্ষণ নাও হতে পারে।

বাংলাদেশ প্রাথমিক শিক্ষক সমিতির ফুলপুর উপজেলা কমিটির নেতা জিয়াউর রহমান পান্না বলেন, ফুলপুরে ঝুঁকিপূর্ণ ভবনগুলোতে শ্রেণি পাঠদান চলাকালে শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা সবসময় আতঙ্কে থাকেন। যে কোনো সময় অনাকাঙ্খিত দুর্ঘটনার সম্ভাবনা রয়েছে। তাই চিহ্নিত ঝুঁকিপূর্ণ ভবন সরিয়ে নতুন ভবন নির্মাণের দাবি জানান তাঁরা।

ফুলপুর উপজেলার প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মোহাম্মদ ফেরদৌস কালের কণ্ঠকে বলেন, 'ফুলপুর উপজেলায় সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ঝুঁকিপূর্ণ ভবনগুলো চিহ্নিত করা হয়েছে। এরইমধ্যে কয়েকটি ভবনের নির্মাণ কাজ চলছে। পর্যায়ক্রমে সমস্ত ভবনের কাজ করতে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে অবহিত করা হয়েছে।'   

আজকের ময়মনসিংহ
আজকের ময়মনসিংহ
ময়মনসিংহ বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর