ব্রেকিং:
বিয়ে বাড়িতে আত্মঘাতী বোমা বিস্ফোরণ! চামড়া সংরক্ষণ যথাযথভাবে করা হয়েছে: শিল্প সচিববঙ্গবন্ধু হত্যাকাণ্ড তদন্তে কমিশন গঠনের দাবি তথ্যমন্ত্রীর ‘এখনো ষড়যন্ত্র চলছে, বাতাসে চক্রান্তের গন্ধ’ ‘চিকিৎসকদের উচ্চশিক্ষার জন্য বিদেশে পাঠানো হবে’
  • শুক্রবার   ০৭ আগস্ট ২০২০ ||

  • শ্রাবণ ২৩ ১৪২৭

  • || ১৭ জ্বিলহজ্জ ১৪৪১

আজকের ময়মনসিংহ
১৭২

ফারিন-মনোজের প্রেম, মানছে না পরিবার!

আজকের ময়মনসিংহ

প্রকাশিত: ১৪ জানুয়ারি ২০২০  

একটা অ্যাকসিডেন্টে শোয়েবের পা আঘাতপ্রাপ্ত হয়। তার বন্ধু নিলয় নিজেদের বাড়িতে বাসা ভাড়া দেয় শোয়েবকে। সেখানেই শোয়েবের সঙ্গে দেখা হয় ইরার সঙ্গে। মেয়েটি নিলয়ের বোন। প্রতিদিন সকালে কলেজে যাবার পথে সিঁড়িতে শোয়েবের সঙ্গে দেখা হয় তার। বিষয়টি ভালোভাবে নিতে পারেনি ইরা। তাই বাসায় বলে তিন দিনের নোটিশে বাসা ছেড়ে দিতে বলে শোয়েবদের। 

বাসা ছেড়ে চলে যায় তারা। একদিন ইরা তার ভাইয়ের কাছে জানতে পারে পায়ে সমস্যার কারণে প্রতিদিন সকালে হাটতে যেতো শোয়েব। সে সময়ই তাদের দেখা হতো। নিজের ভুল বুঝতে পারে ইরা। এরপর তারা দেখা করেন এবং ইরা তার ব্যবহারের কারণে লজ্জিত হয়। একটা পর্যায়ে নিয়মিত যোগাযোগ এবং ভালোলাগার কথা জানান শোয়েবকে। কিন্তু বন্ধুর বোন বলে বিষয়টি এড়িয়ে যায় শোয়েব। 

নানা ঘটনার পর দুজনের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে। এমন সময় পরিবার থেকে ইরার জন্য পাত্র দেখা শুরু হয়। সে সময় সবাইকে শোয়েবের সঙ্গে সম্পর্কের কথা জানিয়ে দেন ইরা। বিষয়টি মেনে নিতে পারে না নিলয় ও তার পরিবার। শোয়েবকে অপমান করে। শোয়েব অপমানে সম্পর্ক ভেঙে দেয়। এমন অবস্থায় ইরাও অন্য পাত্রকে বিয়ের জন্য রাজি হয়ে যায়। কিন্তু ঘটনা চক্রে এই বিয়ে হয় না। 

তাহলে কি ইরা আর শোয়েবের হাত দুইয়ে দুইয়ে চার হবে। নাকি তাদের আর দেখাই হবে না? এমন রহস্যের গল্পে এগিয়ে যাবে একক নাটক ‘মন কি যে চায় বলো’ নাটকের দৃশ্য। সম্প্রতি রাজধানীর উত্তরার বিভিন্ন লোকেশনে নাটকটির দৃশ্য ধারণের কাজ শেষ হয়েছে। মেজবাহ উদ্দীন সুমনের রচনায় নাটকটি নির্মাণ করেছেন নির্মাতা রিদম খান শাহীন। 

 

শুটিংয়ের ফাঁকে ‘মন কি যে চায় বলো’ নাটকের টিম

শুটিংয়ের ফাঁকে ‘মন কি যে চায় বলো’ নাটকের টিম

নাটকটিতে ইরার চরিত্রে দেখা যাবে নাট্যাঙ্গনের আলোচিত মুখ তাসিনয়া ফারিনকে। শোয়েবের চরিত্রে অভিনয় করেছেন মনোজ প্রামাণিক আর নিলয়ের চরিত্রে ছাব্বির আহমেদ। এছাড়াও নাটকটির বিশেষ দুটি চরিত্রে অভিনয় করেছেন মিলি বাসার ও আজম খান। 

নাটকটির প্রসঙ্গে তাসনিয়া ফারিন বলেন, এ বছর ‘মন কি যে চায় বলো’ নাটকের মাধ্যমেই কাজ শুরু করেছি। প্রথম কাজ তাই গল্প ও চরিত্রের প্রতি সচেতন ছিলাম। মনে হয়েছে মনের মতো একটি গল্পে কাজ করতে পেরেছি।  আশা করছি নাটকটি দর্শকদের ভালো লাগবে। 

নির্মাতা রিদম খান শাহীন বলেন, সব সময়ই চেষ্টা করি পরিবার নিয়ে দেখার মতো নাটক নির্মাণের। ভিউ আর হিটের শ্রোতে কোনোদিন ছুটিনি। চেয়েছি ভালো গল্পের নাটক উপহার দিতে। এ নাটকটিও তার ব্যতিক্রম না। গল্পটি সবার ভালো লাগার মতো। ফারিনসহ বাকিরা দুর্দান্ত অভিনয় করেছেন। আশা করবো নাটকটি দর্শকদের মনে গেঁথে থাকবে।

এ নির্মাতা আরো জানান, ‘মন কি যে চায় বলো’ নাটকটি শিগগিরই যে কোনো একটি টেলিভিশন চ্যানেলে প্রচারিত হবে।

বিনোদন বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর