ব্রেকিং:
বিয়ে বাড়িতে আত্মঘাতী বোমা বিস্ফোরণ! চামড়া সংরক্ষণ যথাযথভাবে করা হয়েছে: শিল্প সচিববঙ্গবন্ধু হত্যাকাণ্ড তদন্তে কমিশন গঠনের দাবি তথ্যমন্ত্রীর ‘এখনো ষড়যন্ত্র চলছে, বাতাসে চক্রান্তের গন্ধ’ ‘চিকিৎসকদের উচ্চশিক্ষার জন্য বিদেশে পাঠানো হবে’
  • রোববার   ০৯ আগস্ট ২০২০ ||

  • শ্রাবণ ২৪ ১৪২৭

  • || ১৯ জ্বিলহজ্জ ১৪৪১

আজকের ময়মনসিংহ
৩৯১

প্রেমের ফাঁদে ফেলে কিশোরীকে অপহরণের পর ধর্ষণ

আজকের ময়মনসিংহ

প্রকাশিত: ৪ ফেব্রুয়ারি ২০২০  

মুঠোফোনের মাধ্যমে প্রেমের ফাঁদে ফেলে ময়মনসিংহে এসএসসি পরীক্ষার্থীকে অপহরণের পর ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে।

এ ঘটনায় থানায় মামলার পর অভিযুক্ত চার সন্তানের জনক ইউসুফ আলীকে (৪০) গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

গ্রেপ্তার ইউসুফ আলী তারাকান্দা উপজেলার রামপুর ইউনিয়নের পূর্বপাড়া গ্রামের গোলাম হোসেনের ছেলে।

সোমবার (৩ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে তাকে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে।

এর আগে একই দিন সকালে ভুক্তভোগী ওই কিশোরীর ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য তাকে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ (মমেক) হাসপাতালে পাঠানো হয়।

তারাকান্দা থানা ও ভুক্তভোগীর পরিবার সূত্রে জানা যায়, ইউসুফ আলী নিজের পরিচয় গোপন রেখে দীর্ঘদিন ধরে মুঠোফোনে ওই কিশোরীর সঙ্গে প্রেমের প্রতারণা করে আসছিল। গত ২৬ জানুয়ারি তারাকান্দা বাসস্ট্যান্ড থেকে ওই কিশোরীকে কৌশলে অজ্ঞাত স্থানে নিয়ে দিনভর ধর্ষণ করে রাত ১০টার দিকে বাড়িতে পাঠিয়ে দেয় সে। ওই সময় ঘটনাটি কাউকে জানালে মেরে ফেলার হুমকিও দেয় ইউসুফ আলী।

একপর্যায়ে রবিবার (২ ফেব্রুয়ারি) ওই কিশোরী বিষয়টি পরিবারকে জানালে রাতেই তার বাবা বাদী হয়ে তারাকান্দা থানায় একটি ধর্ষণ মামলা করেন। এরপর ওই রাতেই মোবাইল ট্যাকিং করে পুলিশ ইউসুফ আলীর অবস্থান শনাক্ত করে তাকে গ্রেপ্তার করে।

এ ব্যাপারে তারাকান্দা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবুল খায়ের দৈনিক অধিকারকে বলেন, ‘ইউসুফ আলীকে গ্রেপ্তারের পর সোমবার আদালতে পাঠানো হয়েছে। একই সঙ্গে মেয়েটিকে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য মমেক হাসপাতালে পাঠানোর সকল ব্যবস্থা সম্পন্ন করা হয়েছে।’

ময়মনসিংহ বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর