ব্রেকিং:
বিয়ে বাড়িতে আত্মঘাতী বোমা বিস্ফোরণ! চামড়া সংরক্ষণ যথাযথভাবে করা হয়েছে: শিল্প সচিববঙ্গবন্ধু হত্যাকাণ্ড তদন্তে কমিশন গঠনের দাবি তথ্যমন্ত্রীর ‘এখনো ষড়যন্ত্র চলছে, বাতাসে চক্রান্তের গন্ধ’ ‘চিকিৎসকদের উচ্চশিক্ষার জন্য বিদেশে পাঠানো হবে’
  • বৃহস্পতিবার   ১৬ জুলাই ২০২০ ||

  • আষাঢ় ৩১ ১৪২৭

  • || ২৫ জ্বিলকদ ১৪৪১

আজকের ময়মনসিংহ
১০৯

ডেঙ্গু প্রতিরোধে নাগরিকদেরও দায়বদ্ধতা রয়েছে: নাসিম

আজকের ময়মনসিংহ

প্রকাশিত: ১০ আগস্ট ২০১৯  

ডেঙ্গু প্রতিরোধে এডিস মশার উৎসস্থল ধ্বংসে ঢাকার দুই সিটি কর্পোরেশনকে বছরব্যাপী কর্মসূচি হাতে নেয়ার আহ্বান জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ও কেন্দ্রীয় ১৪ দলের মুখপাত্র মোহাম্মদ নাসিম।

তিনি বলেন, ডেঙ্গু থেকে রক্ষা পেতে মশা নিধনের বিকল্প নেই। তবে ডেঙ্গু প্রতিরোধে নাগরিকদেরও দায়বদ্ধতা রয়েছে। সবাইকে সচেতন হতে হবে, সতর্ক থাকতে হবে।

শুক্রবার দুপুরে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বিএসএমএমইউ) ডেঙ্গু চিকিৎসাসেবা সেল পরির্দশন শেষে সাংবাদিকদের তিনি এ সব কথা বলেন।

ডেঙ্গু বর্তমানে আতঙ্ক সৃষ্টি করেছে- এমন মন্তব্য করে সাবেক এ স্বাস্থ্যমন্ত্রী আরও বলেন, তবে আমাদের দেশের হাসপাতালগুলোর চিকিৎসক-নার্সরা, মেডিকেল টেকনোলজিস্ট, ল্যাব টেকনিশিয়ানরাসহ সংশ্লিষ্টরা রাত-দিন সত্যিকার অর্থেই সেবা দিয়ে যাচ্ছেন। পরিশ্রম করে চলেছেন। সাপ্তাহিক ছুটির দিনও তারা সেবা দিয়ে যাচ্ছেন।

এ সময় সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ডা. কনক কান্তি বড়ুয়া বলেন, জ্বর হলেই যথাসময়ে হাসপাতালে এসে চিকিৎসকের পরামর্শ নিন। দেরি করে আসলে রোগীর স্বাস্থ্যঝুঁকি বেড়ে যায়। যারা জ্বরে আক্রান্ত হয়েছেন পরীক্ষা না করিয়ে বাড়ি যাবেন না। পরীক্ষায় ডেঙ্গু ভাইরাস ধরা পড়লে বাড়ি যাবেন না। তবে রক্ত পরীক্ষার পর যাদের ডেঙ্গু ধরা পড়েনি তারা বাড়ি যেতে পারেন।

এ সময় অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সাম্যবাদী দলের সাধারণ সম্পাদক দিলীপ বড়ুয়া, বিএসএমএমইউএর উপ-উপাচার্য (গবেষণা ও উন্নয়ন) অধ্যাপক ডা. মো. শহীদুল্লাহ সিকদার, উপ-উপাচার্য (প্রশাসন) অধ্যাপক ডা. মুহাম্মদ রফিকুল আলম, সার্জারি অনুষদের ডিন অধ্যাপক ডা. মো. জুলফিকার রহমান খান, রেজিস্ট্রার অধ্যাপক ডা. এ বি এম আবদুল হান্নান, প্রক্টর অধ্যাপক ডা. সৈয়দ মোজাফফর আহমেদ, পরিচালক (হাসপাতাল) ব্রিগেডিয়ার জেনারেল এ কে মাহাবুবুল হক প্রমুখ।