ব্রেকিং:
বিয়ে বাড়িতে আত্মঘাতী বোমা বিস্ফোরণ! চামড়া সংরক্ষণ যথাযথভাবে করা হয়েছে: শিল্প সচিববঙ্গবন্ধু হত্যাকাণ্ড তদন্তে কমিশন গঠনের দাবি তথ্যমন্ত্রীর ‘এখনো ষড়যন্ত্র চলছে, বাতাসে চক্রান্তের গন্ধ’ ‘চিকিৎসকদের উচ্চশিক্ষার জন্য বিদেশে পাঠানো হবে’
  • সোমবার   ০১ জুন ২০২০ ||

  • জ্যৈষ্ঠ ১৭ ১৪২৭

  • || ০৯ শাওয়াল ১৪৪১

আজকের ময়মনসিংহ
১৪৫

ঘুরে আসুন বিপজ্জনক কফি হাউজগুলো থেকে

আজকের ময়মনসিংহ

প্রকাশিত: ১০ মার্চ ২০২০  

পৃথিবীতে অনেকেই আছেন যারা বেশ রোমাঞ্চকর অভিজ্ঞতা পছন্দ করেন। আবার অনেকে আছেন যারা বেঁচে থাকার জন্যই বেঁচে আছেন।

তবে আপনি যদি রহস্য, রোমাঞ্চকর বা দুঃসাহসিক অভিযান পছন্দের দলের হয়ে থাকেন। তাহলে আপনার জন্য আজকের লেখাটি। কারণ আজ আপনাকে দেব পৃথিবীর সবচেয়ে রোমাঞ্চকর আর বিপজ্জনক কফি হাউজের খোঁজ।

আর যদি আপনি কফিপ্রেমী হন। তাহলে তো এক ঢিলে দুই পাখি মারার সুযোগ থাকছে আপনার জন্য।

এমনসব জায়গায় এই কফি হাউজগুলো অবস্থিত যেখানে স্বাভাবিক ভাবনার কোনো মানুষ যাওয়ার কথা চিন্তাই করবে না। আর এর স্থপতিও দেখিয়েছেন তার কাজের তকমা। কিছু স্থপতি স্পষ্টভাবে একটি চ্যালেঞ্জ পছন্দ করেন। এটি চ্যালেঞ্জই বটে।

 

 

খাড়া পাহাড়ের ওপর যে কফি হাউজটি দেখতে পাচ্ছেন। এটি চীনের কিয়ুনে অবস্থিত। এর স্থপতি ছিলেন। এটি কিয়ুংশন ট্রি হাউস নামেই সেখানে পরিচিত। এ কফি হাউজটি সেই এলাকার অনেকগুলো পর্যটন জায়গার সংযোগ স্থাপন করেছে। কিয়ুংশন ট্রি হাউস কাঁচ এবং কাঠ দিয়ে তৈরি করা হয়েছে।

 

 

নাগিরা হাউজ নামে পরিচিত এই কফি হাউজটি উত্তর মেক্সিকোয় একটি পার্বত্য অঞ্চলে অবস্থিত। এটি বানানো হয়েছে সেখানকার সবচেয়ে খাড়া পাহাড়ের ওপর। ঘন বন আর গাছপালার মধ্যে নাগিরা হাউজ যেন উঁকি দেয়। ভাবছেন কেন এই উঁচু খাড়া পাহাড়ের ওপর কফি হাউজ বানানো হয়েছে? সমতলে বানালেই তো হতো। মূলত বন্যপ্রাণীদের সম্মানেই তৈরি করা হয়েছে এ কফি হাউজ।

 

 

ছবিতে যে সুন্দর আর ঝকঝকে বাড়িটি দেখতে পাচ্ছেন। এটি পর্তুগালের আলগারভ অঞ্চলে অবস্থিত। ভিলা এসকার্পা নামের এই কফি হাউজটি কোবাটা আর্কিটেক্ট আটিলিয়ার ডিজাইনে  জাপানের হায়োগো কোম্পানি তৈরি করে। কংক্রিট আর কাঁচের মিশ্রণে তৈরি এই হাউজটি।

 

 

উত্তর-পূর্ব স্পেনে অবস্থিত এই অনিন্দ্য সুন্দর সানফ্লাওয়ার হাউজ। এই কফি হাউজটিতে রয়েছে রেস্টুরেন্ট ছাড়াও বাথরুম, শয়নকক্ষ, রান্নাঘর এবং বসার ঘর।

 

 

নরওয়ের এই অত্যাশ্চর্য টু-ইন-ওয়ান হাউসে এখন অবশ্য দু’টি পরিবার বসবাস করছেন। রেইল্ফ রামস্টাড আরকিটেক্টে নির্মিত এই হাউজটি মূলত কফি হাউজ হিসেবেই তৈরি করা হয়েছিল। এটি তৈরি করা হয়েছে একটি খালের ওপর। নরওয়েতে প্রায় সারা বছর অনেক বেশি তুষারপাত হয়ে থাকে। আর তুষারের হাত থেকে বাঁচাতে টু-ইন-ওয়ান হাউস তৈরি করা হয়েছে ভারটিক্যাল সিডার কাঠের প্যানেলে। 

এই হাউজটি তৈরি করেছেন স্থাপত্যবিদ এডুয়ার্ডো কাদাবাল। যার ডিজাইন করেছিলেন ক্লারা সোলা-মোরেলেস। বার্সেলোনার উপকণ্ঠে অবস্থিত এই হাউজ। পর্বত আর সমুদ্রের মধ্যে এই হাউজটি অসাধারণ দৃশ্যধারণ করে। এটি নির্মাণ করা হয় সুইস পাহাড়ের উপরে।

 

 

কাইকের ভিলা নামে পরিচিত হাউজটি জাপানের আতামিতে অবস্থিত। জিগ জাগ ডিজাইনটি হাউজটিকে দিয়েছে অন্যরকম সৌন্দর্য।

 

 

কাসা দেল অ্যাকান্টিলাদো এই বাড়িটি স্পেনের গ্রানাডায় অবস্থিত। এর স্থপতি ছিলেন গৌডি। এ হাউজটি ক্লিফ হাউস নামেও পরিচিত।  

নোভা স্কটিয়ার আটলান্টিক উপকূলে একটি পাহাড়ের পাদদেশে অবস্থিত।  

সূত্র: ডেইলিমেইল 

ইত্যাদি বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর